মুরাদনগরে নৌকাকে বিজয়ী করতে তৃণমূল সসংজ্ঞবদ্ধ।


deshsomoy প্রকাশের সময় : ২০২৪-০১-০১, ১২:১৪ অপরাহ্ন /
মুরাদনগরে নৌকাকে বিজয়ী করতে তৃণমূল সসংজ্ঞবদ্ধ।
print news || Dailydeshsomoy

প্রকাশিত,০১, জানুয়ারি,২০২৪

মুরাদনগর(কুমিল্লা)প্রতিনিধিঃ

কুমিল্লার মুরাদনগরে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারণা জমে উটেছে। আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন (এফসিএ)’র পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে মাঠে নেমেছেন দলটির তৃণমূল নেতাকর্মীরা। সঙ্গে আছেন জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারাও। এরই মাঝে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ভোটারদের দ্বারে দ্বারে চষে বেড়াচ্ছেন নৌকার প্রার্থী ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন। ২০১৪ সালে স্বতন্ত্র থেকে এ আসনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন। পরে ২০১৮ সালে নৌকা প্রতীকে এ আসনে নির্বাচন করে পুনরায় জয়লাভ করেন। ইউসুফ আব্দুল্লা হারুনকে জয়ী করে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নেতাকর্মীরা একাট্টা হয়ে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

জানা যায়, এ আসনে ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন নির্বাচিত হওয়ার পর এ আসনে উন্নয়নের নতুন মাত্রা যোগ হয়। তার দশ বছরে উন্নয়নের মাঝে অন্যতম হলো- বাঙ্গরা বাজার থানা প্রতিষ্ঠা, শ্রীকাইল কলেজ সরকারিকরণ, ৮ মেগাওয়াট থেকে ৫২ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উন্নীতকরণ, ২০ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন ৩টি বিদ্যুৎ উপকেন্দ্র স্থাপন। তছাড়া নির্মাণাধীন রয়েছে মুরাদনগর উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন, ১ হাজার মে. টন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন খাদ্যগুদাম। প্রক্রিয়ায়াধীন প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে ৩৫০ কোটি টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে মুরাদনগর-ইলিয়টগঞ্জ সড়কে গোমতী ব্রিজসহ সকল ব্রিজ নির্মাণ।

পান্তিবাজার পুলিশ ফাঁড়ি স্থাপন, মুরাদনগর পৌরসভা গঠন, শিল্পকলা একাডেমি নির্মাণ। নির্মাণাধীন ও পক্রিয়াধীন প্রকল্পগুলো বাস্তবায়িত হলে পাল্টে যাবে মুরাদনগর উপজেলার দৃশ্যপট। তাছাড়া মুরাদনগর হবে উন্নয়নের মাইল ফলক। ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুনের এসব উন্নয়ন ভোটারদের আকৃষ্ট করেছে বর্তমান ভোটের মাঠকে। উল্লেখ্য, এ আসন থেকে এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১০ জন প্রার্থী। এরমধ্যে হেভিওয়েট স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মাঠে আছেন কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ঈগল প্রতীকের জাহাঙ্গীর আলম সরকার। কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ম. রুহুল আমিন বলেন, ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন মুরাদনগরে ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। আমি ব্যাপক আশাবাদী এ আসনে নৌকা বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে। ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুন (এফসিএ) বলেন, মুরাদনগর আওয়ামী লীগ ও তার অঙ্গ সংগঠন নৌকাকে বিজয়ী করতে আমরা একযোগে কাজ করছি। ইতিমধ্যে আমরা সকল ভোটকেন্দ্রের কমিটি সম্পূর্ন করে ফেলেছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সারা দিয়ে নৌকার নেতাকর্মীরা একতাবদ্ধ। সাবেক জেলা আওয়ামী লীগের এক নেতা স্বতন্ত্র থেকে ঈগল প্রতীকে নির্বাচন করছেন। তার বিএনপি’র নেতাকর্মীর সঙ্গে আঁতাত করার খবর পাওয়া যাচ্ছে। এমনিতে আমার মাঠের অবস্থা বেশ ভালো আছে। আশা করছি এ আসন বিগত দিনের মতো এবারো মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে উপহার দিতে পারবো।