ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে নির্বাচন বর্জনকারীদের প্রত্যাখ্যান করেছে জনগণ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী।


deshsomoy প্রকাশের সময় : ২০২৪-০১-১৭, ৯:৪৯ অপরাহ্ন /
ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে নির্বাচন বর্জনকারীদের প্রত্যাখ্যান করেছে জনগণ: তথ্য প্রতিমন্ত্রী।
print news || Dailydeshsomoy

প্রকাশিত,১৭, জানুয়ারি,২০২৪

মারুফ সরকার, স্টাফ রিপোর্টারঃ

ভোট বিপ্লবের মাধ্যমে জনগণ নির্বাচন বর্জনকারীদের প্রত্যাখ্যান করেছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক মোহাম্মদ এ আরাফাত।

তিনি বলেন, একটি গোষ্ঠী ভোট বর্জন করতে অগ্নি সন্ত্রাস করেছিল। ভোটের দিন তারা হরতাল ডেকেছিল। কিন্তু নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে সন্ত্রাস ও অগ্নিসন্ত্রাসের রাজনীতি দেশের মানুষ প্রত্যাখ্যান করেছে।

বুধবার (১৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় মানিকদী আদর্শ বিদ্যানিকেতন স্কুল অ্যান্ড কলেজে এক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

মোহাম্মদ এ আরাফাত বলেন, একটি গোষ্ঠী ভোট বর্জন করেছে এবং দেশের জনগণকে হুমকি ধামকি দিয়েছিল ভোট বর্জন করতে। তারা অগ্নি সন্ত্রাস করেছিল, ভোটের দিন হরতাল ডেকেছিল। কিন্তু আমরা বলেছিলাম, ভোট যারা নির্বাচন বর্জন করে, অগ্নিসংযোগ করে, ভোটের দিন হরতাল দেয়, তাদের বর্জন করতে হবে। ঢাকা-১৭ আসনের মানুষ গত উপনির্বাচনের মত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দ্বিগুণ ভোটে আমাকে নির্বাচিত করে ভোট বর্জনকারীদের প্রত্যাখ্যান করেছে।

তিনি বলেন, এই ভোট ছিল ভোট বর্জনকারী সন্ত্রাসীদের প্রত্যাখ্যানের নির্বাচন এবং সেই নির্বাচনে আমরা জয়ী হয়েছি। আমরা বলেছিলাম যে এই নির্বাচনটি শুধু আমাদের এমপি হওয়ার নির্বাচন নয়, বাংলাদেশের রাজনীতি এবং আগামী দিনের রাজনীতি ও বাংলাদেশের নির্বাচন কেমন হবে তা নির্ধারিত হবে এই নির্বাচনের মাধ্যমে। যারা অতীতে কখনো গণতন্ত্রের পক্ষে কাজ করে নাই, গণতন্ত্রকে বিনষ্ট করেছে, ভোট চুরি করেছে। যখন তারা বিরোধী দলে ছিল, তখন তারা অগ্নিসন্ত্রাস করে সাধারণ মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে। এই দল এবং গোষ্ঠী গণতন্ত্রের বিপক্ষে, নির্বাচনের বিপক্ষে, বাংলাদেশের উন্নয়ন এবং অগ্রগতির বিপক্ষে। কাজেই তাদেরকে প্রত্যাখ্যান করার জন্য আমরা ভোটারদের আহ্বান জানিয়েছিলাম। শত বাধা, হুমকি, ভয়-ভীতি, সন্ত্রাস সবকিছুকে না বলে ভোট বিপ্লব করেছে। গোটা বাংলাদেশ তাদেরকে না বলেছে।

তথ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, মানিকদীবাসীদের যতগুলো দাবি রয়েছে আমরা কিন্তু সেগুলো ধাপে ধাপে পূরণ করার চেষ্টা করছি এবং করবো। আমি যা কিছু করি না কেন ঢাকা-১৭ আসন আমার আগে। আপনাদের ভোটের কারণে কিন্তু আমি আজকে প্রতিমন্ত্রী হতে পেরেছি এবং আপনাদের আসনের সংসদ সদস্য।

তিনি বলেন, আপনারা আমাকে উপ নির্বাচনে নির্বাচিত করেছেন এবং দ্বিতীয়বারের মতো জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমাকে নির্বাচিত করেছেন। আপনারা আমার জন্য নির্বাচনে যে সময় দিয়েছেন, কষ্ট করেছেন সেজন্য আমরা বিগত দিনে উপনির্বাচনে যে ভোট পেয়েছিলাম এবার সংসদ নির্বাচনে তার দ্বিগুণ ভোট পেয়েছি।

তিনি আরও বলেন, আমি এলাকার অনেক সমস্যার কথা শুনেছি। গ্যাস, বিদ্যুৎ, রাস্তাসহ অনেক সমস্যা রয়েছে। ইতিমধ্যে কয়েকটি রাস্তা আমি উদ্বোধন করেছি এবং আজ চারটি রাস্তার কাজের উদ্বোধন হয়েছে এবং আগামীকাল আমি আরো একটি রাস্তার কাজের উদ্বোধন করবো।

মোহাম্মদ এ আরাফাত বলেন, মাটি নিচের গ্যাস শেষ হওয়ার কারণেই গ্যাসের সমস্যাটা হচ্ছে। তবে আমরা আশা করছি, খুব শিগগিরই এই সমস্যাটি সমাধান করতে পারব। তবে ভবিষ্যতে আমাদের এলপিজি ব্যবহার করতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের সকল নাগরিকের জন্য সকল সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে চান। তার নেতৃত্বে একজন কর্মী হিসেবে, বঙ্গবন্ধুর কর্মী হিসেবে আমি আপনাদের আগামী পাঁচ বছরে মধ্যে আমি ইনশাল্লাহ আপনাদের সকম সমস্যা সমাধানের জন্য কাজ করব।

মোহাম্মদ এ আরাফাত বলেন, কিছু কিছু সংস্থা আছে যারা নির্বাচন নিয়ে কথা বলছে, নির্বাচন নিয়ে মন্তব্য করছে। তাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে হবে। আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি, নির্বাচনে বিশ্বাস করি, মানুষের ভোটাধিকারে বিশ্বাস করি।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যার নেতৃত্বে এদেশে স্বাধীনভাবে আমরা চলবো। কোনো অপশক্তি আমাদের দমিয়ে রাখতে পারবে না। বিদেশি কোনো রাষ্ট্রের কথায় আমাদের এই দেশ চলবে না। কাজেই আমাদেরকে মানবাধিকার আর গণতন্ত্রের জ্ঞান দিবে, আমাদেরকে কটাক্ষ করবে, এটার জবাব আমাদের দিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সবার ওপরে আমাদের প্রধানমন্ত্রী আছেন। উনার যে ত্যাগ, যে সাহস, যে ভালোবাসা আমাদের দেশের জন্য, আমাদের জন্য, আমরা ইনশাল্লাহ উনার নেতৃত্বে আরো এগিয়ে যাবো সকল চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে।