নেত্রকোণার-১৫৯/৩ কেন্দুয়া-আটপাড়া আসনে দ্বিমুখী লড়াই। ব্যস্ত সময় পাড়ি দিচ্ছেন নৌকা/স্বতন্ত্র প্রার্থী ।


deshsomoy প্রকাশের সময় : ২০২৪-০১-০৪, ৮:০৪ অপরাহ্ন /
নেত্রকোণার-১৫৯/৩ কেন্দুয়া-আটপাড়া আসনে দ্বিমুখী লড়াই। ব্যস্ত সময় পাড়ি দিচ্ছেন নৌকা/স্বতন্ত্র প্রার্থী ।
print news || Dailydeshsomoy

প্রকাশিত,০৪, জানুয়ারি,২০২৪

বাবুল নেত্রকোণা থেকেঃ

আসন্ন দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নেত্রকোণার কেন্দুয়া-আটপাড়া আসনের জমে উঠেছে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা।

কেন্দুয়া-আটপাড়া উপজেলা ঘুরে জানা যায়,এই দুই উপজেলার একটি আসন।
এই আসনে বর্তমান সাংসদ কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য অসীম কুমার উকিল নৌকা প্রতিক।সাবেক সাংসদ স্বতন্ত্র প্রার্থী ইফতিকার উদ্দিন তাং পিন্টু ট্রাক প্রতিক আরেক সাংসদ মঞ্জুর কাদের কোরাঈশী ঈগল প্রতিক নিয়ে। অন্যদিকে জাতীয় পর্টির মনোনীত প্রার্থী জসিম ভূইয়া লাঙ্গল প্রতিক নিয়ে মাঠে কাজ করছে।

সরজমিন ঘুরে জানা যায় কেন্দুয়া উপজেলায় ১৩টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা আর আটপাড়া উপজেলায় ৭টি ইউনিয়নে ভোটারদের উপস্থিতি বাড়ানোর জন্য নৌকার প্রার্থী এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজ করে যাচ্ছে।

তবে এই আসনটিতে দ্বিমুখী লড়াই হবে।একদিকে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী অসীম কুমার উকিল নৌকা প্রতিক নিয়ে অন্যদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইফতিকার উদ্দিন তাং পিন্টু ট্রাক প্রতিক নিয়ে।

স্স্থনীয় সাধারণ জনতা এবং তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়,গত ৫ বছরের বর্তমান সাংসদ অসীম কুমার উকিল মাইম্যান গোটা কয়েক নেতা নিয়ে দল পরিচালনা করেছেন এবং কেন্দুয়া-আটপাড়া উপজেলায় ত্যাগি নির্যাতিত ও তৃণমূল নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়ন করায় এই আসনটি সাবেক সফল এমপি স্বতন্ত্র প্রার্থী ইফতিকার উদ্দিন তাং পিন্টু পক্ষে কেন্দুয়া-আটপাড়ার ৮০% আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা ট্রাক প্রতিক নিয়ে ভোটারদের কাছে যাচ্ছেন এবং পথ সভা জনসভা করছেন।
আরও দেখা যায় কেন্দুয়া-আটপাড়া উপজেলার হেভিওয়েট সিনিয়র নেতাকর্মীরা প্রকাশ্যে গত ৫ বছরে বর্তমান সাংসদ এবং নৌকার প্রার্থী অসীম কুমার উকিল এবং উনার সহধর্মিণী অধ্যাপিকা অপু-উকিলের বিরুদ্ধে দলীয় ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন ত্যাগি নেতাদের অবমূল্যায়ন সরকারের উন্নয়ন মূলক কাজ না করা সহ অনেক অভিযোগ জনসভায় জনসম্মুখে বক্তব্য রাখছেন।

আজ রাতে কেন্দুয়ার গন্ডা ইউনিয়নে পথসভায় হাজার হাজার সাধারণ মানুষের উপস্থিতিতে আটপাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সাবেক তুখোড় ছাত্রনেতা তসলিম উদ্দিন খান জীবন এবং কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ উপ-কমিটির সদস্য এবং সাবেক নির্যাতিত ছাত্রনেতা মীর মেহেদী হাসান টিটু বক্তৃতায় বলেন দাদা মানে অসীম কুমার উকিল কথা দিয়ে কথা রাখেনি এবং বাবু অসীম কুমার উকিল গত ৫বছর গোটা কয়েক নেতা নিয়ে কেন্দুয়া-আটপাড়া উপজেলায় লুটপাট করেছেন।

কেন্দুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সফল সাধারণ সম্পাদক এবং সাবেক বার বার ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর চৌধুরী বলেন বাবু অসীম কুমার উকিল কেন্দুয়া-আটপাড়া উপজেলার আওয়ামীলীগকে ধ্বংস করে দিছেন।
তিনি আরো বলেন, যে ব্যক্তিটা ঢাকা শহরে থাকতে হিমশিম খেত কি এমন চেরাগআলীর চেরাগ পাইছেন যে কেন্দুয়ায় বিশাল ডুপ্লেক্স বাড়ি ঢাকায় ১৭টি ফ্ল্যাট, ইন্ডিয়ায় শত শত বিঘা জমি সহ সম্পদের পাহাড় গড়েছেন–?
এমন অনেক অভিযোগ করেন নেত্রকোণা জেলা কৃষকলীগের সাবেক সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় কৃষকলীগের নেতা বাবু কেশব রঞ্জন সরকার সহ অনেক নেতাকর্মীরা।

আরও জানা যায়, বর্তমান এমপি অসীম কুমার এমপি চালানোর ৩ বছরের মধ্যকার সময়ে সাবেক কৃষকলীগের সভাপতি কেশব রঞ্জন সরকার এমপির অবৈধ সম্পদের পাহাড় গড়ে তোলার জন্য দুদকে অভিযোগ করেন।

প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে পর্যবেক্ষণে সাধারণ মানুষ ও ত্যাগি নেতাদের সঙ্গে কথা বলে আরও জানা যায় কেন্দুয়া-আটপাড়া উপজেলায় সরকারের উন্নয়ন করতে এবং সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য একমাত্র সাবেক সফল এমপি স্বতন্ত্র প্রার্থী ইফতিকার উদ্দিন তাং পিন্টুর কোন বিকল্প নাই।
কারণ স্বতন্ত্র প্রার্থী ইফতিকার উদ্দিন তাং পিন্টু একজন দক্ষ সংগঠক সৎ,ধার্মিক লোক।
সাবেক এমপি পিন্টুর আমলেই কেন্দুয়া-আটপাড়া আসনে অনেক উন্নয়ন হয়েছে।

এ ব্যাপারে নৌকার প্রার্থী এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীর মোবাইলে বার বার ফোন দেওয়া হলেও হয়তো নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা ব্যস্ত থাকায় গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য নেওয়া যায় নাই।