দুলারহাটে অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীর পরিবারকে মামলা তুলে নিতে হুমকি।


deshsomoy প্রকাশের সময় : ২০২৪-০৬-০৯, ৫:৩৫ অপরাহ্ন /
দুলারহাটে অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীর পরিবারকে মামলা তুলে নিতে হুমকি।
print news || Dailydeshsomoy

প্রকাশিত, ০৯,জুন, ২০২৪

চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি।

দ্বীপ জেলা ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার দুলারহাট থানার আহাম্মদপুরে অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে একাধিক বার ধর্ষণের অভিযোগ উঠে স্থানীয় এক যুবকের বিরুদ্ধ, পরে বিয়ে না করায় ছাত্রীর মা বাদি হয়ে দুলারহাট থানায় নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন মামলা হওয়ার পর থেকে ধর্ষক সাগর বিভিন্ন কৌশলে পালিয়ে যায়, মামলা সুত্রে পালিয়ে থাকা সাগরকে গত ৬ জুন রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বরিশালের র‍্যাব – ৮ একটি ঘর থেকে তাকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

মামলা সুত্রে জানাযায় গত ২৩ মে রাতে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণ করেন স্থানীয় এক যুবক। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর মা বাদি হয়ে দুলারহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন গত ২৯ মে সাগরকে আসামি করে মামলাটি হলে ৬ জুন বরিশালের র‍্যাব – ৮ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে আটক করেন আটক হওয়ার পর থেকে মামলা তুলে নিতে আসামিরা হুমকি ধামকি দিতে শুরু করে বলে সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন বাদীপক্ষ।

স্থানীয় নুরুল ইসলাম মাঝি (৫০) পিতা নুরু মাঝি জানান ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর মা বাদি হয়ে মামলা করায় মামলা সুত্রে র‍্যাব সাগরকে আটক করেন আটক হওয়ার পর থেকে ধর্ষণকারী সাগরের বাবা মো: মালেক বড় ভাই মঞ্জু সহ আসামি পক্ষের লোকজন বাদীপক্ষকে মামলা তুলে নিতে বিভিন্ন হুমকি দামকি প্রদান করে আসছে এতে বাদীপক্ষে লোকজন নিরাপত্তা হিনতায় ভুগছে, আহাম্মদপুর ৯ নং ওয়ার্ড আ’লীগ সভাপতি ধর্ষণ মামলার সাক্ষী মো: গিয়াসউদ্দিন জানান ঘটনার ওই দিনে ছেলে মেয়ের মধ্যে যা ঘটেছিলো তা আমি এবং এলাকার সকল মানুষ জানে সে সত্য ঘটনায় আমি সাক্ষী হওয়াতে আমাকেও আসামী পক্ষের লোকজন হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে আমি কেন সাক্ষী হলাম।

এ ব্যাপারে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই মোঃ মুছা জানান বাদীপক্ষকে মামলা তুলে নিতে যদি কোন হুনকি ধামকি দিয়ে থাকে তদন্ত করে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।