তুরাগে মানব পাচারকারী দলের সদস্য, দেহব্যবসায়ী ও ভয়াবহ এক প্রতারক চেক ডিজঅনার মামলায় গ্রেফতার।


deshsomoy প্রকাশের সময় : ২০২৪-০৬-০৯, ৫:১৬ অপরাহ্ন /
তুরাগে মানব পাচারকারী দলের সদস্য, দেহব্যবসায়ী  ও ভয়াবহ এক প্রতারক  চেক ডিজঅনার মামলায় গ্রেফতার।
print news || Dailydeshsomoy

প্রকাশিত, ০৯,জুন, ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

রাজধানীর তুরাগে মানব পাচারকারী দলের সক্রিয় সদস্য, দেহব্যবসায়ী ও ভয়াবহ এক প্রতারক নারীকে চেক ডিজঅনার মামলায় গ্রেফতার করেছে পুলিশ । গ্রেপ্তারকৃতের নাম ইসমত আরা ইতি (৩৩), সে দীর্ঘদিন যাবত তুরাগের ধউর এলাকায় বসবাস করে আসছে, প্রথম দিকে বিভিন্ন গার্মেন্টসে শ্রমিক হিসেবে কাজ করলেও ২/৩ বছর ধরে জড়িয়ে পড়ে দেহ ব্যবসা, মানব পাচার, প্রতারণাসহ বিভিন্ন অপরাধ মূলক কর্মকাণ্ডে । সে এলাকার অসংখ্য লোকজন ও বিভিন্ন এনজিও থেকে নানা সমস্যার কথা বলে ও নানা রকম প্রলোভন দেখিয়ে হাতিয়ে নেয় লাখ লাখ টাকা এবং কয়েক মহিলাদের স্বর্ণলংকার । আর তার এইসব অপরাধ মূলক কর্মকাণ্ডে সার্বক্ষণিক সহয়তা করে থাকেন, তার আপন বোন লাকি ও তার ভাগনি পায়েলসহ নাম না জানা আরও কয়েকজন । প্রতিবেদকের কাছে এমন গুরুতর অভিযোগ করেন অসংখ্য ভুক্তভোগী । গত প্রায় বছর খানেক পূর্বে উপরোক্ত ব্যক্তি দ্বয়ের সহয়তায় প্রতারক ইসমত আরা ইতি এক মহিলার কাছ থেকে প্রায় ৫লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় এবং কয়েক দিনের মধ্যে ব্যাংক থেকে টাকা তুলে নিতে পারবে মর্মে ডাচ বাংলা ব্যাংকের তার নিজ নামিয় অ্যাকাউন্টের একটি চেক প্রদান করেন । পরে যথা সময়ে ভুক্তভোগী উক্ত টাকা উত্তোলনের জন্য কয়েকবার ব্যাংকে চেক জমা দিলে তার অ্যাকাউন্টে কোন টাকা জমা না থাকায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ উক্ত চেকটি ডিজঅনার করেন । পরে এই ঘটনা ভুক্তভোগী প্রতারক ইসমত আরা ইতিসহ তার সহযোগীদের জানালে তারা ভুক্তভোগীকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি- ধামকি প্রদান করেন । তখন ভুক্তভোগী নিরুপায় হয়ে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি বর্গকে জানালে তারা বিষয়টি স্থানীয় ভাবে মীমাংসা করার চেষ্টা করেন, কিন্তু এই প্রতারক চক্র গণ্যমান্য ব্যক্তি বর্গের কথায় কোন কর্ণপাত না করলে তারা ভুক্তভোগীকে আইনের আশ্রয় নিতে বলেন । পরে ঐ ভুক্তভোগী নিকটতম তুরাগ থানায় গিয়ে উপরোক্ত বিষয়টি জানাইলে থানা পুলিশ আদালতে যাওয়ার পরামর্শ দেন । তার পরে তিনি আদালতে গিয়ে প্রথমে একজন আইনজীবী নিযুক্ত করেন এবং ৩০ দিনের সময় দিয়ে উকিল নোটিস পাঠান প্রতারক ইসমত আরা ইতি বরাবর । প্রতারক উক্ত উকিল নোটিসটি গ্রহণ না করে কৌশলে ফিরত পাঠিয়ে দেন । এরপর নিয়ম মাফিক এই প্রতারকের বিরুদ্ধে আদালতে চেক ডিজঅনার মামলা করেন ওই ভুক্তভোগী, যার মামলা নং- ৮৩/২০২৪ইং । আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে প্রথমে সমন জারি করেন । কিন্তু একই কায়দায় সমনটি গ্রহন না করে কৌশলে ফিরত পাঠিয়ে দেন এই প্রতারক । এদিকে সমন ফিরত পাঠানোর কয়েকদিনের ভিতরেই কৌশলে বাসা পরিবর্তন করে ১লা জুন ২০২৪ইং তারিখ থেকে ধউর এলাকার জৈনক আজিজের বাড়িতে বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করে প্রতারক ইসমত আরা ইতি । সমন ফিরত ও যথা সময়ে আদালতে উপস্থিত না হওয়ার কারনে ইতিমধ্যে আদালত গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি করেন । পরে উক্ত গ্রেপ্তারী পরোয়ানা তুরাগ থানায় পৌছলে ৭ই জুন ২০২৪ইং তারিখ সন্ধ্যা আনুমানিক সাড়ে ৬টার দিকে থানা পুলিশের একটি চৌকস দল অভিযান চালিয়ে উক্ত প্রতারককে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হন । উত্তরা পশ্চিম থানার পুলিশ সূত্রে জানা যায়, এই প্রতারক ইসমত আরা ইতি ও তার দলের কয়েক সদস্যর বিরুদ্ধে দেহ ব্যবসা ও মানব পাচার আইনে পূর্বেরেও মামলা রয়েছে এবং সেই মামলায় কিছুদিন কারা বাসের পরে জামিনে মুক্তি পেয়ে এসেই বিভিন্ন রকম অপরাধ মূলক কর্মকাণ্ড আরও বাড়িয়ে দেন । বর্তমানে উক্ত মামলাটি আদালতে বিচারাধীন । গ্রেপ্তারকৃত প্রতারক ইসমত আরা ইতি, খুলনা জেলার, দৌলতপুর থানার, মহেশেরপাসা কালীবাড়ি গ্রামের আঃ রহমানের মেয়ে । বর্তমানে তুরাগের ধউর এলাকার জৈনক আজিজের বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করতো ।