গলাচিপায় কিশোরীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার।


deshsomoy প্রকাশের সময় : ২০২৩-১২-১৫, ৮:৫৩ অপরাহ্ন /
গলাচিপায় কিশোরীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার।
print news || Dailydeshsomoy

প্রকাশিত,১৫,ডিসেম্বর,২০২৩

সঞ্জিব দাস ,গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধিঃ

পটুয়াখালী জেলার গলাচিপা থানাধীন গোলখালী গ্রামে মোসাঃ লামিয়া নামের তেরো বছরের এক কিশোরীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মৃতা লামিয়া মায়ের সাথে অভিমান করে আত্মহত্যা করেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে।
বৃহস্পতিবার (১৪ ডিসেম্বর) উপজেলার গোলখালী ইউনিয়নের গোলখালী গ্রামের মোঃ দুলাল সিকদারের মেয়ে মোসাঃ লামিয়া (১৩) মায়ের সঙ্গে অভিমান করে বাসায় কেউ না থাকার সুবাদে নিজের পরিহিত ওড়না ব্যবহার করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে দাবি স্বজনদের।
সূত্র জানায়, মৃতা লামিয়া পিতা মোঃ দুলাল সিকদার ও মাতা মোসাঃ লাইজুর সাথে ঢাকায় থাকতো। ঘটনার ৪ দিন পূর্বে মৃতা লামিয়ার বাবা-মা তাকে দাদা-দাদির কাছে রেখে আবার ঢাকায় চলে যায়। ঘটনার দিন সকালে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তার মায়ের সাথে মান-অভিমান হয়। পরে বিকেল ৩ টার দিকে লামিয়ার দাদা ও দাদি ধান কাটার কাজে বাহিরে যায়, বিকাল ৫ টায় তার দাদা ও দাদি ঘরের দরজা খোলা দেখতে পায় এবং ঘরের ভিতরে প্রবেশ করে লামিয়ার ঝুলন্ত মরদেহ দেখে ডাক-চিৎকার দিলে স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থলে জড়ো হয়। পরবর্তীতে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।
মৃত্যু লামিয়ার দাদা মোঃ হালেম সিকদার (৫৬) বলেন, ‘ঘটনার দিন বিকেল ৩ টার দিকে আমি ও আমার স্ত্রী মোসাঃ মুকিবজান (৫০) ধান কাটতে যাই পরবর্তীতে বিকেল ৫ টার দিকে কাজ শেষে আমি ও আমার স্ত্রী ফিরে এসে আমার নাতনি লামিয়ার মরদেহ ঘরের মাঝখানে আড়ার সাথে ওড়না দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পাই। তৎক্ষনাৎ আমার স্ত্রী আমার নাতনি লামিয়াকে দ্রুত নিচে নামিয়ে আনে এবং পরবর্তীতে পুলিশকে সংবাদ দেই’এ বিষয়ে গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মো. ফেরদৌস আলম খান বলেন, ‘এ ঘটনায় গলাচিপা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা রুজু করা হয়েছে। যার মামলা নম্বর- ৯৫। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে, পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে’।