কালীগঞ্জে এতিম পরিবারের জমি দখলের চেষ্ঠা হত্যার হুমকি দিয়ে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার।


deshsomoy প্রকাশের সময় : ২০২৪-০১-১৪, ৮:৩৫ অপরাহ্ন /
কালীগঞ্জে এতিম পরিবারের জমি দখলের চেষ্ঠা হত্যার হুমকি দিয়ে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার।
print news || Dailydeshsomoy

প্রকাশিত,১৪, জানুয়ারি,২০২৪

মোঃ মুক্তাদির হোসেন।
স্টাফ রিপোর্টার।

গাজীপুরের কালীগঞ্জে সম্পত্তির লোভে এতিমের জমি দখলের চেষ্টায় থানায় অভিযোগ দায়ের। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মামলা চলমান থাকায় শরিফকে ঘড় তোলা নিষেধ করেন।
নতুন ভুমি সত্ব আইন-২৯২৩ এ এডিসি রেভিনিউ গাজীপুর বরাবর গত ১৫ অক্টোবর ২৩ই স্বারক নং-৭৭৬৪/২৩ অভিযোগ দায়ের করেন বাদী ফাতেমা। জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে মামলা চলমান থাকা সত্তে¡ও সন্ত্রাসীদের মাধ্যমে দ্বাদশ নির্বাচনের পূর্বে শরিফ মিয়া’র দেয়া মোটা অংকের টাকা দিয়ে তড়িঘড়ি করে একটি টিনের ঘড় তোলে। খবর পেয়ে আবারো কালীগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কাজ বন্ধ করে। সন্তানদের নিয়ে ভয়ে আতংকে বসবাস করছে বিধবা ফাতেমা পরিবার।
ঘটনাটি ঘটেছে, গত ৪ জানুয়ারী বক্তারপুর ইউনিয়নের আলাউদ্দির টেক এর সড়কের পূর্ব পাশে আটলাব মৌজায়। বক্তারপুর ইউনিয়নের ফুলদী গ্রামের আব্দুল কাদিরের ছেলে শরিফ মিয়া জমি দখলের চেষ্টা চালায়।
প্রত্যক্ষদর্শী ও থানা সূত্রে জান যায়, বক্তারপুরের আর এস ৬১ খতিয়ানের আটলাব মৌজার এস,এ ২০৬ ও আরএস ১৩ খতিয়নের ৫৩২ দাগে মোট ৩০ শতক জমি রয়েছে। মৃত মৈইজউদ্দিনের ৩ পুত্র ও ৫ কন্যার নামে সম্পত্তি আরএস রেকড রয়েছে। জোতে পৈত্রিক ওয়ারিশ সূত্রে মালিক। মৈইজুদ্দিনের ৩ ছেলের মধ্যে ছোট ছেলে মৃত ওয়াজকুরুনী, তারই স্ত্রী ফাতেমা বেগম তাদের ওরসজাতক ১পুত্র ৪ কন্যা রেখে যান। উল্লেখ্য, তাদের ক্রয়কৃত সম্পত্তি পৈত্রিক সম্পত্তির পরিমান মোট ১০.৯৪ শতক।
এ বিষয়ে বার বার বিবাদী শরিফের মোবাইলে ফোন করেও পাওয়া দায় নাই। কালীগঞ্জ থানার উপ পরিদর্শক এস আই সাইফুল ইসলাম বলেন, পর পর দুইবার ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি মিমাংশা না হওয়া পর্যন্ত ঘড় তুলতে বারন করেছি।
উল্লেখিত সম্পত্তিতে বন্টন নামা না করে শাহজাহান ও শাহজালাল ইচ্ছেমত উচ্চ মূল্যের দিক দখল ও বিক্রয় করছে। এতিম ও বিধবা পরিবার ফাতেমাকে বিভিন্ন ঝামেলায় জড়িয়ে দিচ্ছে। এমনকি জমিতে গেলে খুন ও হত্যার ভয় দেখায় তারা। জমি দখল দখলের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ এডিসি রেভিনিউ আদালতে ১৪৪ ধারা আরোপ করা হয়। পরে গভীর রাতে তাদের বাড়িতে গিয়ে হত্যার ভয় দেখিয়ে তা প্রত্যাহার করতে বাধ্য করার অভিযোগ করে বাদী।