উখিয়ার এক গরু-মহিষ ব্যবসায়ীর ১৭ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার আতসাৎ করে আতগোপন করেছে ভোলার  নুর নবী।


deshsomoy প্রকাশের সময় : ২০২৪-০৬-০৯, ১২:০৪ পূর্বাহ্ন /
উখিয়ার এক গরু-মহিষ ব্যবসায়ীর ১৭  লক্ষ ৪০ হাজার টাকার আতসাৎ করে আতগোপন করেছে ভোলার  নুর নবী।
print news || Dailydeshsomoy

প্রকাশিত, ০৮,জুন, ২০২৪

পটিয়া( চট্টগ্রাম)থেকে সেলিম চৌধুরী:-

কক্সবাজার জেলার উখিয়া উপজেলার বালুখালী এলাকার এক বৈধ গরু-মহিষ ব্যবসায়ীর সতের লক্ষ চল্লিশ হাজার টাকা আতসাৎ করে আতগোপন করেছে ভোলার লাল মোহান থানার হরিগঞ্জ চরভূতা ইউনিয়নের মোঃ মোহাব্বত হোসেন (২৫) পিতা- মোঃ নুর নবী ও মোঃ নুর নবী (৫০) পিতা- সম্ভাব্য মৃত কালো বেপারী, সাং- হরিগঞ্জ, চরভূতা ইউপি, লালমোহন থানা, জেলা- ভোলা। আসন্ন কোরবানকে সামনে রেখে উখিয়ার গরু-মহিষ ব্যবসায়ীদের সতের লক্ষ চল্লিশ হাজার টাকা নিয়ে আত গোপনের ঘটনায় উখিয়া তথা পুরো কক্সবাজার জেলায় বৈধ গরু ও মহিষ ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। দীর্ঘ পনের বছর ধরে উখিয়ার গরু-মহিষ ব্যবসায়ী সিরাজুল মোস্তফা, রশিদ আহাম্মদ দীর্ঘদিন ধরে ভোলার বিভিন্ন বৈধ গরু ও মহিষ ব্যবসায়ীদের সাথে সুসম্পর্ক রেখে সরকারকে নিয়ম মাপিক আয়কর পরিশোধ করে ব্যবসায় পরিচালনা করে আসছিল। অর্থাৎ উখিয়ার এই সব ব্যবসায়ীরা ভোলা থেকে গরু-মহিষ ক্রয় করে এনে কক্সবাজার উখিয়া বিভিন্ন হাট বাজারে বিক্রয় করিয়া জীবিকা নির্বাহ করিয়া আসছিল। গত ০৩/০৬/২০২৪ইং তারিখ মোঃ মোহাব্বত হোসেন (২৫) পিতা- মোঃ নুর নবী ও মোঃ নুর নবী (৫০) পিতা- সম্ভাব্য মৃত কালো বেপারী, সাং- হরিগঞ্জ, চরভূতা ইউপি, লালমোহন থানা, জেলা- ভোলা, দুই ট্রাক গরু-মহিষের চালান কক্সবাজার তথা উখিয়ায় পাঠানোর মৌখিক কথা বার্তা হওয়ার পর আমরা স্বশরীরে দুই লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা নগদ এবং ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড এর হিসাব নং-২০৫০৩৬৮০২০১১১১৯ হইতে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড এর লালমোহন শাখায় মোঃ মোহাব্বত হোসেন এর নিকট চৌদ্দ লক্ষ নব্বই হাজার টাকা পাঠানো হয়। উল্লেখিত তারিখে মোঃ মোহাব্বত হোসেন পিতা ও পুত্র ব্যাংক থেকে উক্ত টাকা উত্তোলন করার দুই ঘন্টা ব্যবধানের মধ্যে টাকা আতসাৎদের উদ্দেশ্যে আতগোপন করেন। আমাদের সাথে দীর্ঘদিনের কথোকথনের মোবালই নং- ০১৭২২-০৪৮০৪৯, ০১৭৩২-৭৮৬৫৫৪ নাম্বার দুইটি বন্ধ রাখেন। আমরা অনেক খুজাখুজি করার পরে না পেয়ে গত ০৪/০৬/২০২৪ইং তারিখ সকাল ০৬:৩০ মিনিটের সময় লালমোহন থানায় প্রতারকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করি। পরবর্তীতে অভিযোগ তুলে নেওয়ার জন্য মোঃ মোহাব্বত হোসেনগংরা আমাদেরকে প্রাণ নাশের হুমকি-ধমকি দেন এবং ঘটনা প্রবাহ পটুয়াখালীর বাউফল থানার ওসিকে মৌখিক ভাবে অবহিত করি। পরবর্তীতে জীবনের নিরাপত্তার স্বার্থে আমরা কক্সবাজার উখিয়ায় চলে আসি এবং মৌখিক ভাবে ঘটনা সমূহ উখিয়া থানাকেও অবহিত করি। এই ব্যাপারে আমরা আমাদের আতসাৎকৃত সতের লক্ষ চল্লিশ হাজার টাকা উদ্ধারে লালমোহন থানা আইন শৃঙ্খলা বাহিনী জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

সেলিম চৌধুরী 
পটিয়া প্রতিনিধি
পটিয়া চট্টগ্রাম