ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন।


deshsomoy প্রকাশের সময় : ২০২৪-০৫-২০, ৯:২৫ অপরাহ্ন /
ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর   বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন।
print news || Dailydeshsomoy

প্রকাশিত, ২০,মে,২০২৪

অনলাইন ডেক্সঃ

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন আইসিসির।
নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন
ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইয়োভ গ্যালান্টের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) প্রধান কৌঁসুলি করিম খান।

এ ছাড়া হামাসের তিন নেতা ইয়াহিয়া সিনওয়ার, মোহাম্মদ দেইফ এবং ইসমাইল হানিয়াহকেও গ্রেপ্তারের আবেদন করেছেন তিনি।

খবর আলজাজিরার।

হেগভিত্তিক আদালতের প্রি-ট্রায়াল চেম্বার ওয়ানে নেতানিয়াহু ও ইয়াওভ গ্যালান্টের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার জন্য আবেদনপত্র দাখিল করার কথা ঘোষণা করেছেন করিম খান।

গত ৮ অক্টোবর থেকে গাজায় সংঘটিত যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ভার তাদের রয়েছে বলে অভিযোগ তার।

গত তিন বছর ধরে ফিলিস্তিনের অধিকৃত অঞ্চলে ইসরায়েলের কর্মকাণ্ডের তদন্ত করছে আইসিসি। আর সাম্প্রতিক হামাসের কর্মকাণ্ডের বিষয়টিও তদন্তের তালিকায় যুক্ত করেছেন আদালত।

গত ৭ অক্টোবর দক্ষিণ ইসরায়েলে প্রবেশ করে নজিরবিহীন হামলা চালিয়ে ১২০০ ইসরায়েলিকে হত্যা এবং প্রায় ২৫০ জন ইসরায়েলি ও বিদেশি নাগরিককে বন্দি করে গাজায় নিয়ে আসে হামাস।
একই দিন হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে গাজায় নির্বিচারে বোমা হামলা করে আসছে ইসরায়েল। ইতিমধ্যে ছোট্ট এই উপত্যকায় ইসরায়েলের হামলায় ৩৫ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে।

গত নভেম্বরে কাতার ও মিসরের মধ্যস্থতায় হামাস ও ইসরায়েলের মধ্যে সাতদিনের একটি যুদ্ধবিরতি চুক্তি হয়েছিল। চুক্তির আওতায় হামাস শতাধিক ইসরায়েলি বন্দিকে মুক্তিও দেয়। তবে এখনো তাদের হাতে শতাধিক ইসরায়েলি বন্দি রয়েছে। এসব বন্দির মুক্তি নিশ্চিত করতে নেতানিয়াহু সরকারের ওপর দিনকে দিন চাপ বেড়েই চলেছে